এন্টিফাঙ্গাল সাবান এর নাম কি জানুন

আসসালামুয়ালাইকুম প্রিয় বন্ধুরা এন্টিফাঙ্গাল সাবান এর নাম এই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেলটি আপনার জন্য আমাদের মধ্যে অনেকে আছে যারা এ বিষয়টি সম্পর্কে জানেনা।আমাদের আজকের এই আর্টিকেলের মূল আলোচ্য বিষয় হলোএন্টিফাঙ্গাল সাবান এর নাম সেই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা।আপনার মূল্যবান সময় নষ্ট না করে শুরু করা যাক আমাদের আলোচনা আমাদের আলোচনার মূল আলোচ্য বিষয় এন্টিফাঙ্গাল সাবান এর নাম এ সম্পর্কে বিস্তারিত ।

এন্টিফাঙ্গাল সাবান এর নাম
আমার আজকের এই পোস্টটি শেষ পর্যন্ত পড়লে আপনি জানতে পারবেন এন্টিফাঙ্গাল সাবান এর নাম ,চর্ম রোগের সাবান এলার্জির সাবান কোন সাবান শরীরের জন্য ভালো চুলের জন্য কোন সাবান ভালো সম্পর্কে সম্পূর্ণ বিস্তারিত তাই শেষ পর্যন্ত পড়ার অনুরোধ রইলো।

সূচিপত্রঃএন্টিফাঙ্গাল সাবান এর নাম

  • এন্টিফাঙ্গাল সাবান এর নাম
  • চর্ম রোগের সাবান
  • এলার্জির সাবান
  • কোন সাবান শরীরের জন্য ভালো
  • চুলের জন্য কোন সাবান ভালো

এন্টিফাঙ্গাল সাবান এর নাম

এখন আমরা এন্টি ফাংগাল সাবানের নাম এবং এর কাজ সম্পর্কে জানব। অ্যান্টি ফাংগাল সাবান মূলত ছত্রাক প্রতিরোধে সাহায্য করে ছত্রাক বৃদ্ধিতে বাধা দেয়। অনেকগুলো এন্ট্রি ফাংগল সাবান রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম Joyneca Anti fungal Soapকেটো সপ। এই সাবানগুলো ছত্রাক ব্যাকটেরিয়া তৈরিতে বাধা প্রদান করে। এই সাবানগুলো উন্নত ওষুধ হিসেবে কাজ করে । বিভিন্ন জীবাণু ইস্টজনিত সমস্যাগুলো এই সাবান থেকে সমাধান পাওয়া যায় । এই সাবান সাধারণ সাবানের মতই ব্যবহার করতে পারবেন।
এই সাবান ব্যবহারের কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া আছে।এই সাবান ব্যবহারে রক্তপাত হতে পারে বমি বমি ভাব হতে পারে স্ক্রিনে জ্বালাপোড়া হতে পারে চুলকানি হতে পারে শরীরের চামড়ায় ফুস কুড়ি দেখা দিতে পারে । এছাড়া ওই সাবান ব্যবহারে বদহজম সৃষ্টি হতে পারে । তাই ব্যবহার বিধি মেনে ডাক্তারের পরামর্শ মোতাবেক এ সাবানের মাত্রা সম্পর্কে জেনে নিন । অবশ্যই এই সাবান ব্যবহার করার আগে ডাক্তারের শরণাপন্ন হবেন।

চর্ম রোগের সাবান

আমরা একটু উপরে এন্টিফাঙ্গাল শাবানের নাম সম্বন্ধে জানলাম এখন আমরা চর্ম রোগের সাবান সম্পর্কে জানব । আমাদের চর্ম রোগ বিভিন্ন ভাবে হতে পারে অনেক সময় বংশপরম্পরা থেকেও চলতে পারে এই রোগ। এই রোগ নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। এই রোগ হলে সাধারণত শরীরের চুলকানি সৃষ্টি হয়। চর্ম রোগের প্রধান ঔষধ হলো নিম পাতা তাই নিম পাতার সাবান ব্যবহার করা বেশি জরুরি। এছাড়াও বাজারে বিভিন্ন ধরনের চর্মরোগ এর সাবান পেয়ে যাবেন।
সাবান ব্যবহার করা সাধারন সাবানের মত । তবে নিম পাতা সাবান বেশি কার্যকরী। সাবান ছাড়া নিম পাতার মাধ্যমে চর্মরোগ ভালো হয় । নিম পাতা গরম পানির সাথে মিক্স করে। সেই গরম পানিতে গোসল করলে শরীরের ব্যাকটেরিয়া জীবাণু ছত্রাক সব কিছুর সমাধান পাওয়া যায়।
আমরা সবাই জানে নিম পাতা তিতা স্বাদ যুক্ত তাই গোসল করার সময় মুখে গেলে আপনার মুখের স্বাদ কিছুক্ষণের জন্য নষ্ট হয়ে যেতে পারে তাই সতর্কতা অবলম্বন করে গোসল করতে হবে। সাবানটি আপনার চোখে গেলে চোখ জ্বালাপোড়া করতে পারে অধিক মাত্রায় সাবান ব্যবহার করে ফেললে শরীরে বিভিন্ন ধরনের ক্ষতি দেখা দিতে পারে যেমন আপনার স্কিন পুড়ে যেতে পারে শরীরের বিভিন্ন ধরনের লালচে ভাব দেখা দিতে পারে। ব্যবহারের আগে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

এলার্জির সাবান

এলার্জি সব সময় মানুষের হয় না যার হয় তার আবার ছাড়ে না কিন্তু এই এলার্জি কিছু একটা নিরাময় করা যেতে পারে । এলার্জি হলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ডাক্তারের চিকিৎসা নিয়ে চলাফেরা করবেন এর সাথে এলার্জির নিরাময় কিছু নিয়ম মেনে চলবেন। এলার্জি সাধারণত কয়েক ধরনের হয়ে থাকে অনেকের খাবারের উপর এলার্জি আবার অনেকের ধুলোবালিতে এলার্জি।
যাদের খাবারের উপর এলার্জি তারা অবশ্যই যেসব খাবারে এলার্জি আছে সেসব খাবার পরিহার করবেন। সাধারণভাবে গরুর মাংসের গরুর দুধে টমেটো মিষ্টি কুমড়া গাজর চিংড়ি মাছ কচু ইত্যাদির খাবারের মধ্যে এলার্জি দেখা দেয় অবশ্যই এসব খাবার পরিহার করবেন। এর সাথে সাবান ব্যবহার করতে পারেন assure soap ,Tetmosol soap ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারেন ।

কোন সাবান শরীরের জন্য ভালো

সাবান সাধারণত ত্বকের উপর নির্ভর করে ক্রয় করা উচিত । ত্বক সাধারণত দুই ধরনের , তৈলাক্ত ত্বকের জন্য এন্টি ব্যাকটেরিয়াল সাবান ব্যবহার করতে পারেন । এতে করে তৈলাক্ত ভাব চলে যাবে।সাধারণ ভাবে এই সাবানের পি এইচ মান ৯ থেকে ১০ এর মধ্যে থাকে যা ত্বকের জন্য ভালো। তাই সাবান দেখে শুনে কি নেওয়া উচিত পিএইচ এর মান কমবেশি হলে আপনার ত্বকের সমস্যা হবে মারাত্মক।
তাই যে সব ধরনের মান 9 থেকে 10 এর মধ্যে থাকবে আপনি সেই হিসেবে কিনতে পারবেন এতে আপনার ত্বকে কোন ক্ষতি হবে না। চেষ্টা করবেন ব্যাকটেরিয়া ছত্রাক মুক্ত করে এমন সাবান ব্যবহার করতে ত্বক নরম ও জীবাণমুক্ত হবে। অনেকে অনেক সমান ব্যবহার করেন ফলে তাদের বিভিন্ন ধরনের ত্বকের সমস্যার সম্মুখীন হন। যেমন কালো হয়ে যাওয়া ব্রণ বের হওয়া ইত্যাদি। তাই চেষ্টা করবেন চর্ম বিশেষজ্ঞ ডাক্তার পরামর্শ নিয়ে সাবান ব্যবহার করা।

চুলের জন্য কোন সাবান ভালো

সাধারণভাবে চুলে সাবানটা কেউ বেশি ব্যবহার করে না। কারণ এর উপকারের থেকে অপকারই বেশি আমরা এখন জানবো চুলের জন্য কোন সাবান ভালো। মূলত চুলের জন্য কোন সাবান নেই। কারণ চুলে সাবান দিলে চুলের কন্ডিশনার থাকে না এদের চুল শুষ্ক দেখায় এবং আটা আটা ভাব সৃষ্টি করে। সাধারণত ময়লা খুব তাড়াতাড়ি যুক্ত হয়ে যায় চলে সাবান ব্যবহারের ফলে।
তবে সাবানের থেকে শ্যামপুর ব্যবহার করা বেস্ট । এতে চুল ভালো হয় ময়লা দূর হয় এবং সিল্কি ভাব সৃষ্টি করে। যেহেতু সাবানের থেকে শ্যামপুর ব্যবহারে চুলের উপকারিতা বেশি তাই চুলের জন্য সাবান ব্যবহার করে শ্যামপুর ব্যবহার করবেন
আশা করছি বন্ধুরা আপনারা আজকের এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে সাবান সম্পর্কে নানা খুঁটিনাটি বিষয়ের জানতে পারলেন।

Leave a Comment