হাঁটুর ব্যাথা সারানোর ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত

প্রিয় পাঠক আপনাদের অনেকের জানা নেই হাটুর ব্যাথা সারানোর ঘরোয়া উপায় কি। তাই আপনার ও যদি এমন প্রশ্ন  থাকে তাহলে আমার আজকের এই আর্টিকেলটি মন দিয়ে পড়ুন। কেননা আমার আজকের এই আর্টিকেল এর মূল বিষয় হলো ঘরোয়া উপায়ে হাটুর ব্যাথা সারানোর উপায় এর কাজ  নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা। তো আপনার মূল্যবান সময় নষ্ট না করে চলুন শুরু করা যাক হাঁটুর ব্যাথা সারানোর ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত।

হাঁটুর ব্যাথা সারানোর ঘরোয়া উপায়

পেজ সূচিপত্রঃ হাঁটুর ব্যাথা সারানোর ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত

  •  হাঁটুর ব্যাথা সারানোর ঘরোয়া উপায় 
  • শেষ কথা-হাঁটুর ব্যাথা সারানোর ঘরোয়া উপায় কি

 হাঁটুর ব্যাথা সারানোর ঘরোয়া উপায় 

আগে বয়স বাড়লে হাঁটুর ব্যথার ভোগার কথা শোনা যেত। এখন কম বয়সেও এ সমস্যা দেখা দিচ্ছে। বাড়ি থেকে কাজের জেরে আরো সমস্যা বেড়েই চলেছে। সারাদিন যখন খাটে বসে বা নিদিষ্ট স্থানে বসে কম্পিউটার এ বসে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কেটে যাচ্ছে। আর তার জন্য আমাদের দিন দিন অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। এই সমস্যা গুলো হচ্ছে পিঠ ব্যাথা,কোমর ব্যাথা এবং এর মধ্যে অন্যত্তম হচ্ছে হাঁটুর ব্যাথা।
এই হাঁটুর ব্যাথা হচ্ছে জন্য তো আর প্রতিদিন ব্যাথার ঔষধ খেতে পারবেন না। অত্যান্ত বেশি পরিমান ব্যাথার ঔষধ খেলে আপনি আরো নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন। শরীরের আর কোনো সমস্যা থাক বা নাই থাক কিন্তু সকলকেই হাঁটু ব্যাথার কথা বলতে শোনা যায়। হাঁটুর ব্যাথা ছেলেদের তুলনায় মেয়েদের শরীরেই বেশি জাঁকিয়ে বসে।

হাঁটু ব্যথা হলে হাঁটু ফুলে যায়,লাল হয়ে থাকে,হাঁটু ভাজ করতে ও সমস্যার সম্মুখীন হয়। এছাড়াও হাঁটতে, দাঁড়াতে অসুবিধে হয়। ফলে কিছু ঘরোয়া উপায় এর মাধ্যেমে আপনার এই সমস্যার সমাধান হতে পারে। চলুন জেনে আসি হাঁটুর ব্যাথা হগলে কিছু ঘরোয়া টোটকা।

  • আপনার সবার আগে বোঝতে হবে ব্যথার ধরন। কোন ধরনের চোটে ব্যথা পেয়েছেন তা বোঝার চেষ্টা করুন। আপনার নিজের ওপর একটু যন্ত বান হলেই এই ধরনের ব্যাথা নিয়ত্রন করা সম্ভব।      
  • যদি হঠাৎ করেই লেগে গিয়ে থাকে, তবে আগে আপনার একটু বিশ্রাম নেয়া। যেখানে ব্যাথা পেয়েছেন সেই স্থান নরম স্থানে রাখা। এর পর আপনার ব্যথা পাওয়া স্থান বেশি নড়ানো যাভে না।আপনার পা একটু উঁচু স্থানে রাখুন, এতে আপনার ব্যথা কমবে।                                                       
  • হাঁটুতে একবার ব্যথা হলে সেই ব্যথা সহজে কমতে চায় না। তাই আপনার উচিত প্রতিদিন নিয়ম মেনে ব্যয়াম করা।তাতে আপনার ব্যথা পাওয়া স্থানটি নমনীয় থাকবে। আপনি এই ব্যায়াম গুলো করতে পারেন—যোগব্যায়াম, সাইকেল চালানো এবং হাল্কা হাটাহাটি। তবে আপনি যদি চোট পেয়ে থাকেন আগে থেকে তাহলে অবশ্যই এই ব্যায়াম গুলাে করার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া জরুরী।                                                                                                                                     
  • আপনি মনে করতে পারেন যে হাঁটুর ব্যাথা হয় চোট লাগলে। কিন্তু না হাঁটুর ব্যাথার একটি বড় কারণ হলো আপনার অতিরিক্ত পরিমানে ওজন। কারণ আপনার শরীর যত ভারী থাকবে, তত আপনার শরীরের ওপড় চাপ পড়বে। তাই আপনার ওজন কমানোর  দিক নজর দিতে হবে। তাতে আপনার হাঁটুর ব্যাথা সমস্যার অনেকটাই সমাধান হবে।                                                                    
  • আপনি যদি কোথাও ধাক্কা খেয়ে বা পড়ে গিয়ে ব্যথা পেয়ে থাকেন তাহলে আপনি সেই স্থানে বরফ ধরতে পারেন। কিন্তু আপনার সরাসরি সেই স্থানে বরফ ধরা ঠিক না, আপনি আইচ ব্যাগ ব্যবহার করতে পারেন। এতে আপনার ব্যথা কিছুটা কমবে। সঙ্গে সেই স্থানটি শক্ত করে বেঁধে রাখুন।           
  • আপনি ঘরে বসেই মাসাজ এর মাধ্যেমেও আপনার হাঁটুর ব্যাথা কমাতে পারেন। এতে আপনার প্রথমে অলিভ-ওয়েল তিন-চার চামচ তেল গরম করে আপনার ব্যথার স্থানটি আলতো ভাবে দশ-পনেরো মিনিট মালিশ করুন। দিনে দুই থেকে তিন বার করতে হবে।                                                
  • আপনি গরম পানির সাহায্যেও আপনার সমস্যার সমাধান করতে পারেন। আপনি কুসুম কুসুম ভাবে প্রথমে পানি গরম করে নিন। এরপর পানির ভিতর আপনার হাঁটু ডুবিয়ে রাখুন। আবার আপনি হট ব্যাগও ব্যবহার করতে পারেন। এটিও আপনার দিনে দুই থেকে তিন বার করতে হবে।   
  •  হাঁটুর ব্যাথার জন্য মেথি খুব কার্যকরী একটি উপাদান। মেথি সাধারণ ঔষধের মতো কাজ করে থাকে। মেথির মধ্যে রয়েছে  অ্যান্টিইন ফ্লেমেটরি গুণ। প্রথমে আপনি মেথি গুড়ো করে নিন। এবার এই পাাুডার আপনি গরম পানিতে মিশিয়ে নিন এক চামচ এবং এটা সেবন করুন। এতে আপনার সমস্যার কিছুটা কমবে।                                                                                                        
  • আপনি নিশ্চই জানেন তুলসীর অনেক গুণ আছে। এর মধ্যে রয়েছে এ্যান্টি-ব্যাটেরিয়াল,এন্টি-অক্যিডেন্ট গুণ। এবার এই গুণ আছে জানার পর তুলসি হতে পারে আপনার কাছে অন্যত্তম সেরা হাতিয়ার। কারণ এটা ব্যথার ক্ষেত্রে অত্যান্ত কার্যকারী একটা হাতিয়ার। এর জন্য প্রথমে এক গ্লাস গরম পানিতে এক চামচ তুলসীর রস ফেলে দিন। এরপর তা খেকে নিন। এতে আপনার অনেকটা ব্যাথা কমে যাবে।                                                                                                                 
  • হলুদ দুধ হাঁটুর ব্যাথা দূর করার জন্য অন্যত্তম ভালো হাতিয়ার হয়ে যেতে পারে আপনার কাছে। এক্ষেতে দেখা গিয়েছে যে এই দুই খাদ্যের মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন উপকারি উপাদান। যা আপনার ব্যাথা কমানোর কাজে  লাগে।                                                                                                              
  •  কর্পূর তেল রক্ত সঞ্চালন দৃর করে এবং জয়েন্টে ব্যাথা থেকে মুক্তি দেয়। এক চামচ কর্পূর গুড়ো এবং এক কাপ নারকেল এর তেল নিন এবং গরম করুন। খেয়াল রাখবেন যেন বেশি গরম না হয়।এবার এই তেলটি ঠান্ডা করুন।  তাহলে ব্যাথা অনেক কমতে পারে। এটা সপ্তাহে চার দিন অবশ্যই ব্যবহার করবেন।                                                                                                                       

শেষ কথা – হাঁটুর ব্যাথা সারানোর ঘরোয়া উপায় কি

প্রিয় পাঠক আপনারা এতক্ষণ পড়ছিলেন হাঁটুর ব্যাথা সারানোর ঘরোয়া উপায় কি। আসা করি আমার আজকের এই পোষ্টটি পড়ে আপনার উপকারে আসবে। আমার এই  পোস্টটি যদি আপনার ভালো লাগে তাহলে আপনার বন্ধুদের কাছে শেয়ার করতে পারেন।
আর যদি নতুন কোনো বিষয়ে তথ্য জানতে চান তাহলে আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারেন। এতক্ষণ আমার এই পোষ্টটি পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবান।

Leave a Comment