অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো হবে জেনে নিন

প্রিয় পাঠক আপনাদের অনেকের জানা নেই যে অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো হবে। তাই আপনার ও যদি এমন প্রশ্ন থাকে তাহলে আমার আজকের এই আর্টিকেলটি মন দিয়ে পড়ুন। কেননা আমার আজকের এই আর্টিকেল এর মূল বিষয় হলো অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো সেই সম্পর্কে বিস্তাারিত আলোচনা। তো আপনার মূল্যবান সময় নষ্ট না করে চলুন শুরু করা যাক অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো হবে সেই সম্পর্কে। 

অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো

আমার এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়লে আপনি আরো ভালো করে জানতে পারবেন অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো  হবে সেই সম্পর্কে। 

পেজ সূচিপত্রঃ অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো হবে জেনে নিন

  • ফেসিয়াল কিফেসিয়াল কত প্রকার
  • ফেসিয়াল করার উপকারিতা
  • ব্রণের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো
  • শেষ কথা – অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো করণীয় কি

ফেসিয়াল কি 

ফেসিয়াল হলো আমাদের মুখের সৌন্দর্য ও চেহারা সতেজ পেতে আমরা সাধারণত ফেসিয়াল ব্যবহার করে থাকি। আপনার ত্বক কেমন বা ত্বকের ধরণ এবং আপনি কি ধরনের ফেসিয়াল করবেন তার উপর নির্ভর করে ফেসিয়াল করা হয়ে থাকে। ফেসিয়াল হলো এমন প্রক্রিয়া যার মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের ধাপ । সেই ধাতুগুলো নিচে তালিকা আকারে প্রকাশ করা হলো এবং  ধাপ গুলোর কিছু বর্ণনা নিচে দেওয়া হল ঃ
  • ক্লিনজিং                                                                                                                                                         
  • স্ক্রাবিং                                                                                                                                                    
  • ম্যাসাজ                                                                                                                                                                
  • ফেসপ্যাক          
ক্লিনজিং কি

সাধারণত ক্লিনজিং সৌন্দর্য বৃদ্ধি প্রক্রিয়ার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। যা আমাদের ত্বকে সুস্থ ও উজ্জ্বল রাখতে সাহায্য করে। এই ফেসিয়াল ক্লিনাপ করার জন্য সাধারণত ১৫ দিন সময় এর পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে। যেখানে ফেসিয়াল করতে এর থেকে দেড় ঘন্টা সময় লেগে থাকে। সেখানে এই আপ করতে ৩০ থেকে ৪৫ মিনিটের মধ্যে শেষ হয়। এর মধ্যে ক্লিনজিং, স্ক্রাবিং, ম্যাসাজ ও ফেসপ্যাক ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

ফেসিয়াল কত প্রকার

আপনার ত্বকের যত্নের ও উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে ফেসিয়াল খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। তবে আপনার ত্বকের জন্য সব ধরনের ফেসিয়াল হয় না। আপনি যে ধরনের ফেসিয়াল করেন না কেন, ত্বক অনুযায়ী আপনাকে ফেসিয়াল করতে হবে। নিচে কয়েকটি ফেসিয়াল ও এর ধাপ দেওয়া হলোঃ
গোল্ড ফেসিয়ালঃ আপনার ত্বকের লাবণ্যতা এবং উজ্জ্বলতার ফিরে আনতে এই গোল্ড ফেসিয়াল খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আপনি এই গোল্ড ফেসিয়াল কিট খুব সহজেই বাজার থেকে কিনে নিজেই ব্যবহার করতে পারেন। আপনি এই কিট ৬০০ থেকে ১৫০০ টাকা এর মধ্যে পেয়ে যেতে পারেন আপনার পছন্দের ফেসিয়াল কিট।
ন্যাচারাল ফেসিয়ালঃ বর্তমানে ত্বকের যত্নে ঘরোয়া উপায় অবলম্বন করা হয়ে থাকে। যার ফলে ফেসিয়ালের জন্য যে কেমিক্যাল ব্যবহার করা হতো তা ব্যবহার করা কমে গেছে। এই ঘরোয়া উপায়ে যে ফেসিয়াল করা হয়ে থাকে তা আপনাদের ত্বকের জন্য অনেক কার্যকরী থাকে এবং আপনাদের ত্বককে সুস্থ রাখতে এটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।
ফ্লাওয়ার ফেসিয়ালঃ ফুল শুধু গন্ধ বা সৌন্দর্য বাড়ায় না। এই ফুল দিয়ে ফেসিয়াল করলে তা অনেক কার্যকরি হয়ে থাকে। গোলাপ এবং জবা ফুলের পাপড়ি থেকে ফেসিয়াল করা হয়ে থাকে। যা আমাদের ত্বকের সোন্দর্য বৃদ্ধি করে থাকে।

ফেসিয়াল করার উপকারিতা

অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ হলো আমাদের ত্বক। যা প্রতিদিন দূষণের ফলে আমাদের ত্বক ক্ষতি গ্রস্থ হচ্ছে। এছাড়া ও আমাদের নানান ধরনের চিন্তা, বয়স বাড়ার সাথে সাথে আমাদের ত্বকে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। তাই আমাদের উচিত ফেসিয়ালের মাধ্যমে আমাদের ত্বক কে সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে রাখা।
ত্বক ভালো রাখতে বা সৌন্দর্য ধরে রাখতে আমাদের প্রতি দিন ফেসিয়াল করা উচিত। কারণ আমাদের ত্বক ভালো রাখতে মরা কােষ গুলোকে দূর করতে হবে এবং লোম এর গোড়া পরিষ্কার রাখতে হবে।
কারণ আমরা বাড়িতে যেভাবে ত্বক পরিষ্কার করে থাকি। সেই ভাবে গভীর ভাবে ত্বক পরিষ্কার হয় না। এই উক্তিটি দিয়েছেন রেড বিউটি স্যালনের রুপ বিশেষজ্ঞ ( আফরোজা পারভিন )।
এই ত্বক যদি গভীরভাবে পরিষ্কার করা না হয় তাতে ছোপ ছোপ দাগ পড়ে যায়। আর যদি ত্বক বা লোম পরিষ্কার না থাকে তাহলে ব্রণ হতে পারে এর পাশাপাশি নতুন কোষ জন্মাতে পারে না। আপনি যদি প্রতি মাসে দুই বার অর্থাৎ পনেরো দিন পর পর ফেসিয়াল করে থাকে। তাহলে সেই ত্বক ভালো থাকে। তবে আঠারো বছরের পর থেকে আপনাদের ফেসিয়াল করলে ভালো হবে। কারণ ১৮ বছর এর আগে করলে ত্বক এর সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ব্রণের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো

অ্যালোভেরা হলো এমন একটি প্রাকৃতিক উপাদান, যা আমাদের ত্বকের অনেক উপকারি একটা উপাদান। ব্রণের জন্য অ্যালোভেরা ফেসিয়াল গুরুত্ব পূর্ণ ভূমিকা পালন করে। যাদের ব্রণ হওয়ার প্রবণতা বেশি তারা এই  অ্যালোভেরা ফেসিয়াল ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও রোদে পোড়া দাগ কমায় ও ত্বকের তারুণ্য ফিরে আনে। এই সময়  ত্বক সবসময় তেল তেলে থাকে। তাই এ ব্রনের মত সমস্যা দেখা দেয়।   
আমাদের ত্বকে সেবেসিয়াস নামক এক ধরনের গ্রন্থি থাকে। এই সেবেসিয়াস গ্রন্থির ক্ষরন সঠিক ভাবে না হলে ব্রণ এর মতো সমস্যা দেখা দেয়। আবার যদি লোম এর গুড়ায় যদি ময়লা জমে থাকে তাহলে ও এই সমস্যা দেখা দেয়। 

শেষ কথা – অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো করণীয় কি

প্রিয় পাঠক আপনারা এতক্ষণ পড়ছিলেন অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো এর বিস্তারিত। আশা করি আমার আজকের এই পোষ্টটি পড়ে আপনার উপকারে আসবে। আমার এই ওয়েব সাইট এ আপনাদের জন্য প্রতিনিয়ত নতুন নতুন তথ্য নিয়ে বাংলা আর্টিকেল লিখে আসছি।
আমার এই পোষ্টটি যদি আপনার ভালো লাগে তাহলে আপনার বন্ধুর কাছে শেয়ার করতে পারেন। আর যদি নতুন কোনো বিষয়ে তথ্য জানতে চান তাহলে আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারেন। এতক্ষণ আমার এই পোষ্টটি পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবান।

Leave a Comment