ডেলিভারি পেইন উঠানোর উপায়

সব মেয়েদের একটা ইচ্ছে হয় বিয়ের পরে সেটা হলো মা হওয়ার। তবে মা ঠিকি হয় তার আগে কিছু কাজ থাকে তার মধ্যে হলো যে কি ভাবে কম কষ্টে মা হবো। এটা করতে হলে ডেলিভারি পেইন উঠানো সম্পর্কে আগে জানতে হবে। 

ডেলিভারি পেইন উঠানোর উপায়

কি কাজ করলে আমার সন্তান জন্মের আগে আমাকে বেশি কষ্ট না করতে হয়। এর নিয়ম গুলো মা দেরকে জানতে হবে। কারণ নিজে থেকে ডেলিভারি পেইন হলে নিজের ও সন্তান দুই জনি নিরাপদে থাকে। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা দিয়ে না হয়ে নিজে থেকে সন্তান জন্ম নিলে অনেক ভালো হয় এতে সন্তান এর কোনো সমস্যা হওয়ার সম্ভবনা থাকে না। তাই কি কাজ করলে ভালো হ তার কিছু নিয়ম ও খাবারের কথা তুলে ধরলাম। 

সুচিপত্র : ডেলিভারি পেইন উঠানোর উপায় 

সহবাস : ডেলিভারি পেইন উঠানোর প্রথম উপায় যদি বলি তা হলে সেটা হবে সহবাস। কারণ সহবাস করার সময় আমাদের কিছু নিয়ম মেনে সহবাস করলে সেটা পরে মায়ের ডেলিভারিতে সহায়তা করে। সহবাসের সময় যে রসটি বের হয় সেটা যদি মেয়েদের ডিম্বাসয় এর ভিতরে ফেলতে পারলেও এটা ডেলিভারি পেইন উঠানোর কাজে আসে এছাড়াও সহবাসের সময় যদি কোনো মেয়ে ভয় না করে সঠিক ভাবে তার কাজটি সম্পাদন করে তা হলেও এটা অনেক ভালো কাজে আসে শিশুটি জন্ম দেওয়ার সময়। 

সহবাস এমন একটা জিনিস যেটা ঠিক ঠাক করতে পারলে  মা ও শিশু দুই জননি ভালো থাকে নরমাল ডেলিভারি হওয়ার সময়। ছেলেদের এই সহবাসের সময় যে রস বের হয় এতে অনেক শক্তিশালী পটিন থাকে যা একটা মেয়ের সঙ্গে সেটা ঠিক ভাবে করলে নরমাল ডেলিভারি হয় এতে মা ও শিশু দুই জনি ভালো থাকে।

ব্যয়াম: সাধারণত একটি মেয়ে ৩৯ সপ্তাহ পরে মা হয়। আর এই সময়ের একাত মাসের আগে থেকে যদি কিছু ব্যয়াম করতে পারে কোনো মেয়ে তা হলে তার নরমাল ভাবেই সন্তান জন্ম দিতে পারবে। একটি মা যখন সন্তান পেটে আসে তার পরে অনেক কিছু পরিবর্তন দেখা যায়। যেমন মাথা ঘুরে, বমি করে, কিছু খাতে পারে না। এসব কিছু  দেখা  দিলে বোঝা যাচ্ছে যে সে মা হবে।১০ মাস ১০ দিন পরে যখন একটি শিশু জন্ম নেই তখন বাড়িতে সবার আনন্দ হয়। তবে সবাই আনন্দ পেলেও জন্ম দেওয়ার সময় মায়ের অনেক কষ্ট হয়। কারণ এখন অনেক মেয়েরা নরমাল ডেলিভারি কি করলে হবে তা আগে থেকে সে কাজ গুলো করে  না 

যদি একটি মেয়ে সন্তান জন্মের কয়েক মাস আগে থেকে প্রতিদিন সকালে ও বিকালে ১৫-২০ মিনিট করে রাস্ত ও বাড়ির পাসেই হাঁটা হাটি করে তা হলে সন্তান জন্মের সময়  হলে একাই ডেলিভারি পেইন উঠে যাবে এতে মা ও শিশু দুই জন সুস্থ থাকবে। কারণ যদি ব্যয়াম গুলো না করি তা হলে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা দিয়ে ডাক্তার যে সন্তান জন্ম দেয় একটা শিশু তাতে মা অনেক কয় মাস কোনো কাজ করতে পারে না। কারন সে অসুস্থ থাকে আবার সন্তান ও অসুস্থ হতে পারে। তাই সন্তান  জন্মেরকয়েক মাস  আগে থেকে উঁচু জায়গা তে বসতে হবে, সকাল বিকাল ব্যয়াম করতে হবে। তা হলে সঠিক সময় সঠিক ডেলিভারি পেইন উঠে যাবে। 

খেজুর : একট মেয়ের পেটে সন্তান আসলে তাকে অনেক কিছু নিয়ম মেনে খেতে হয়। কারণ সব খাবারে সব কিছু ঠিক সময় হয় না। তার  মধ্যে একটি হলো খেজুর খাওয়া।যদি কোনো মেয়ে পেটে সন্তান আসলে সে যদি সন্তান হওয়ার  কিছু মাস আগে থেকে খেজুর খাওতে পারে তা হলে সে সঠিক সময় সঠিক ডেলিভারি পেইন উঠে যাবে ও সুস্থ শিশু জন্ম দেওয়া হবে একটি মায়ের।  কারন খেজুর প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও সরকরা থাকে যা সন্তান জন্মের আগে মেয়েদের  যে পথ দিয়ে সন্তান জন্ম নিবে সে পথ ফাঁক হয়ে যাবে সন্তান জন্মের সময় হলে এতে মা ও অনেক আরামে একটি সন্তান জন্ম দিতে পারবে। 

আরো পড়ুনঃ গর্ভাবস্থায় ছেলে সন্তান পেটের কোন দিকে থাকে

খেজুর এমন একটি খাবার যা সন্তান জন্মের আগে কোনো মা যদি সঠিক পরিমাণ মতো সেবন করতে পারে তা হলে সেই মা অনেক আরামে নরমাল ডেলিভারি হয়ে য়াবে এতে তাকে আর কোনো রকম ভাবে সন্তান জন্মের পরে অসুস্থ হতে পারবে না। তাই ডেলিভারি পেইন এর জন্য খেজুর একটি বিশেষ খাবার। 

আনারস: সন্তান জন্মের কয়েক মাস আগে থেকে যদি কোনো মেয়ে আবার আনারস খেতে পারে তা হলে সে সঠিক সময় সঠিক ডেলিভারি পেইন উঠে যায়।  কারণ এই আনারসে ব্রোমোলিন এনজাইম থাকে যা সন্তান জন্মের সময় একটি মেয়ের জরায়ুর মুখ নরম রাখে ও মুখ খুলে সন্তান টি বের হতে সাহায্য করে থাকে এই আনারস। 

দারচিনি পাতার চা,  রোলমেরী পাতার চা তৈরি করে কোনো মেয়ে যদি সন্তান জন্মের কয়েক মাস আগে থেকে খেতে পারে তা হলে তার জরায়ু সন্তান জন্মের সময় নরম ও ফাঁক হয়ে যায়  তাতে একটি সন্তান এরপ্রথমে মাথা ওপরে তার শরীর সম্পুর্ন ভালো ভাবে কম কষ্টে জন্ম দেওয়া যায়।  তাই ডেলিভারি পেইন এর জন্য আনারস ও একটি ভালো কাজ করে থাকে।

আরো পড়ুনঃ  প্রসবের ব্যথা দূর করার উপায় কি

নিপল সিটমুলেশন : নিপল সিমুলেশন জরায়ুর সংকোচন করে কোনটাকসনের সুএপাত ঘটাতে পারে। নিপল সিমুলেশন হরমোন যা সন্তান জন্মের আগে জরায়ু মুখের দিকে এমন ভাবে ফাঁক হয়ে যায় যাতে একটি সন্তান নরমাল ডেলিভারি হতে সাহায্য করে থাকে। 

শেষ কথা: ডেলিভারি পেইন উঠানোর উপায় 

আমাদের সবার একটা ইচ্ছে থাকে যে আমার বিয়ে হয়েছে আমার একটা সন্তান হবে। সন্তান টি নিতে হলে বাবা তো কয়দিন  আনন্দ করবে কিন্তু মা অনেক কয় মাস কষ্ট করে কিন্তু কিছু নিয়ম মেনে চললেই সে ভালো ভাবে একটা সন্তান জন্ম দেওয়া যাবে। কিন্তু এগুলো অনেক মা করে না যার ফলে সঠিক সময় পার হয়ে গেলেও মায়ের কোনো ডেলিভারি পেইন উঠে না।

আরো পড়ুনঃ  অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো হবে

য়ার ফলে সন্তান জন্মের সময় হলে অনেক কষ্ট করতে হয়। তাই কষ্ট  না করে উপরের নিয়ম মেনে চললেই একটি সন্তান জন্ম দেওয়া সম্ভব হবে। তাই বলা যায় যে সব মেয়েদের উপরের নিয়ম মেনে চলতে হবে সন্তান জন্মের আগে।

Leave a Comment