মালটিভিট প্লাস কাজ কি – multivit plus

সন্মানিত পাঠকবৃন্দ আশা করি আপনারা সবাই ভালো আছেন ও সুস্থ আছেন। আপনারা আনেকে মালটিভিটি প্লাস ওষুধ এর নাম শুনেছেন ও বিভিন্ন কারনে আনেক সময় সেবনো করেছেন কিন্তু আপনারা আনেকে জানেন না যে এই মালটিভিট প্লাজ আসলে কিসের ওষুধ ও এর কাজ গুলো কি কি ও এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া আছে কি না সে বিষয় কোনো ধারনা নেই আমাদের। তাই আজ আমি আপনাদের সাথে মালটিভিট প্লাজ এর কাজ, পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া, ব্যাবহার ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করবো আশা করি আপনারা আর্টিকেল টি পুরোপুরি পড়বেন।

multivit plus
তাহলে চলুন আপনাদের মূলবান সময় নষ্ট না করে আজকের আর্টিকেল টি শুরু করা যাক।

সূচিপত্র : মালটিভিট প্লাস কাজ কি – multivit plus

  • মালটিভিট প্লাস – multivit plus কি
  • মালটিভিট প্লাস এর উপাদান ও ব্যাবহার
  • মালটিভিট প্লাস এর উপকার
  • মালটিভিট প্লাস এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া
  • শেষ কথা – মালটিভিট প্লাস খেলে কি হয়

মালটিভিট প্লাস – multivit plus কি

আমাদের মধ্যে আনেকেই জন্মগত ভাবে পুষ্টি হীনতায় ভুগে আবার দেখা যায় মাঝে মাঝে অস্বাভাবিক জিবন যাপন এর জন্য পুষ্টি হীনতা দেখা যায় কারা আনেকে মালটিভিট প্লাজ ওষধ ব্যাবহার করে থাকে কিন্তু তারা জানেই না যে মালটিভিট প্লাজ ওষধ আসলে কি তাহলে চলুন জেনে আসা যাক মালটিভিট প্লাজ ওষধ আসলে কি। মানব শরীরের গুরুত্বপূর্ণ দুইটি উপাদান ভিটামিন ও মিনারেল যদি আভাব দেখা যায় যার ফলে তার শরীরে যে সব স্যামসা দেখা দেই সে সব স্যামসা সমাধানে মালটিভিট প্লাজ ওষধ প্রযোগ করা হয়। 

এক কথায় বলা যায় মানব দেহে ভিটামিন ও মিনালের উপাদানের ঘাটতি হলে এই মালটিভিট প্লাজ ওষধ ডাক্তারের সাজেস্ট করে থাকেন। আমাদের বেঁচে থাকার জন্য খাবার থেকে যে পরিমান ভিটামিন পাওয়া দরকার সে পরিমান ভিটামিন আমরা পাই না কারন বর্তমান সময়ে আমরা যে খাবার গুলো খাই তা সবি ফরমালিন ও ভেজাল যুক্ত খাবার যা ফলে শরীরে পর্যান্ত পরিমানে ভিটামিন ও মিনালের তৈরি হয় না যার আভাব পূরণ করতে আপনি মালটিভিট প্লাজ ওষধ সেবন করতে পাড়েন। এই ওষুধ টি আমাদের শরীরের ভিটান ও মিনারেল এর আভাব পূরণ করে থাকে ও শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে থাকে। তাহলে প্রিয় পাঠক আপনারা বুঝতে পেরেছেন যে মালটিভিট প্লাজ আসলে কি ও কি কাজে লাগে। 

মালটিভিট প্লাস এর উপাদান ও ব্যাবহার : 

মালটিভিট প্লাস ওষধ এর উপাদান গুলোর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন এ ১.৫ মি.গ্রা.,ভিটামিন সি ৬০ মি.গ্রা.,ভিটামিন ডি ১০ মি.গ্রা., ভিটামিন ই ১৫ আরো রয়েছে আইইউ, বি১ ১.৫ মি.গ্রা., বি২ ১.৭ মি.গ্রা., বি৬ ২ মি.গ্রা., নিকোটিনামাইড আছে ২০ মি.গ্রা., সায়ানােকো বালামিন আছে ৬ মি.গ্রা., ক্যালসিয়াম প্যানটোথেনেট আছে ১০.৯২ মি.গ্রা., ফলিক এসিড ০.৪ মি.গ্রা., ফেরাস সালফেট ৫০ মি.গ্রা., কিউপ্রিক সালফেট ২ মি.গ্রা., ম্যাঙ্গানিজ সালফেট ১ মি.গ্রা., জিংক সালফেট থাকে ৩৭.০৩ মি.গ্রা., পটাসিয়াম আয়ােডাইড ১৯৬ মি.গ্রা. এবং পটাসিয়াম সালফেট থাকে ১১.১৪১ মি.গ্রা. আরো মানব দেহের জন্য প্রয়োনিয় ভিটামিন উপাদান ও মিনারেল উপাদান ইত্যাদি নিয়ে মালটিভিট প্লাজ ওষুধ তৈরি হয়ে থাকে।

বাংলা দেশের বৃহওম ওষধ কম্পানি স্কায়ার গুরুপ এই ওষধ টি তৈরি করে থাকেন তা বাদে আরো আনেক কম্পানি বিভিন্ন নামে এই ওষধ টি তৈরি করে বাজারে বিক্রি করে থাকেন। আপনারা আগেই দেখছেন যে ভিটামিন ও পর্যান্ত মিনারেল শরীরে না থাকায় আমরা এই মালটিভিট প্লাস ব্যাবহার করে থাকি। তবে এটাই মূল কারন তা বাদে আরো আনেক কিছু রোগ আছে যার জন্য ডাক্তার এই মালটিভিট প্লাজ ওষধ টি সেবন করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। আপনার শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেলে মালটিভিট প্লাজ ডাক্তার সাজেস্ট করতে পারেন, শারীরিক দির্বলতার কারনে মালটিভিট প্লাস খেতে পারেন।

ধরুন আপনি দৃঘ দিন যাবত অসুস্থ হয়ে বিছানায় পড়ে আছেন তখন খাওয়া দাওয়া ঠিক মতো হচ্ছে না শরীরে পুষ্টি ঘাটতি দেখা গেছে তখন আপনি সেই পুষ্টি ঘাটতি স্যমসা সমাধানে এই মালটিভিট প্লাজ ওষধ টি সেবন করতর পারেন। তবে এক বছর থেক ৫ বছর বয়সি বাচ্চাদের মাল্টিভিট প্লাস ওষুধ খাওয়ানো যাবে না। কারন এ সময় বাচ্চা দের পুষ্টি তেমন ঘাটতি থাকে না। পাঁচ বছর বয়সের শেষে যদি কোন বাচ্চা পুষ্টিহীনতায় ভোগে তাদের মালটিভিট ওষধ খাওয়াল আনেক টা উপকারে আসে। মাল্টিভিট প্লাস ওষুধটি ট্যাবলেট আকারের পাওয়া যায় আবার ছোট বাচ্চাদের জন্য সিরাপ আকারে পাওয়া যায়। 

মালটিভিট প্লাস এর উপকার 

মালটি প্লাস এর সবচেয়ে বড় উপকার হলো মানুষের শারীরিক দুর্বলতা নিরসন ও মানব দেহে যদি কোনো প্রকার পুষ্টি ও ভিটামিন এর ঘাটতি থেকে থাকে সে ক্ষেতে মালটিভিট প্লাস খুবই কার্য়াকারী ওষধ হিসেবে কাজ করে থাকে। মালটিভিট প্লাস ওষধ আমাদের শরীরে ভিটামিন, পুষ্টি ও মিনারেল এর আভাব পূরণ করে থাকে। 

এই মালটিভিট প্লাস টেবলেট বাংলাদেশর সুনাম ধন্য ওষধ প্রতিষ্টান স্কায়ার গুরুপ এই ওষধ নি নির্মান করে ছেন। এই ওষধ টি আমাদের জন্য খুবই কার্যকর ওষধ যা আমরা আতি সহজে কম মূলে কোনো মেডিসিন এর দোকান থেকে নিতে পারি যা আমাদের শরির দুর্বলতা যে কোনো ভিটামিন এর চাহিদা পূরণ করে থাকে। 

মালটিভিট প্লাস এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

প্রতিটা জিনিসের কোনো না কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া আছে। কিন্তু অতিরিক্ত কোনো কিছু ভালো না আপনার শরীরে যদি ভিটামিন এর মিনারেল এর আভাব শরীর দুর্বলতা থাকে তাহলে আপনি এই মালটিভিট প্লাস ওষধ টি সেবন করতে পাড়েন। তা বাদে আপনি যদি পরিপূর্ণ সুস্থ থাকেন তাহলে এই মালটিভিট প্লাজ ওষধ খাওয়ার দরকার নাই। কারন সুস্থ আবস্থা এই ভিটামিন বা এ জাতীয় ওষধ খেলে শারিরীক কোনো ক্ষতি হতে পারে।

আরো পড়ুনঃ Traxyl 500 এর কাজ কি

এ জন্য আপনার উচিত আপনার নিকট বতি কোনো চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে আপনার শারিরীক কোনো স্যামসা থাকলে তখন এই ওষধ সেবন করা। আপনি যদি নিয়ম বাদে কোনো শারীরিক স্যামসা বাদে এই ওষধ খেতে থাকেন আপনার ডায়রিয়া হতে পারে তা বাদে সবচেয়ে বড় বিষয় হলো এই ওষধ আপনি যদি দীঘ দিন যাবত খেতে থাকেন আপনার ক্যাস্নার সহো আরো জটিল রোগ হতে পারে। তাই আপনার শারীরিক স্যামসা অনুযায়ী আপনি এই মালটিভিট প্লাস ওষধ টি সবেন করবেন 

শেষ কথা – মালটিভিট প্লাস খেলে কি হয়

মালটিভিট প্লাজ এমন একটি ওষুধ যা ছেলে মেয়ে উভয় সেবন করতে পারেন। এই ওষধ এর মূল কাজ হলো মানব দেহে ভিটামিন মিনারেল আভাব থাকলে তা পূরণ করা তা বাদে শারীরিক দুর্বলতা দীঘ দিন এর দূর্বলতা ইত্যাদি নিরাময় করতে এই ওষধ বেশ কার্যকারি হিসেবে কাজ করে। তা বাদে মানব দেহে আনেক আরারেশন এর পর শারিরীক দুর্বলতা মানুসিক দুর্বলতা ইত্যাদি পরিহার করতে কাজ করে থাকে৷ এই ওষধে পর্য়ান্ত পরিমানে ভিটামনি ডি, ই,ও এ রয়েছে তা বাদে মিনারেলো রয়েছে যা আমাদের মানব দেহের ভিটামিন ঘাটতি পূরণ করতে কাজ করে থাকে। 

আরো পড়ুনঃ কাশির জন্য মোনাস ১০

তাহলে সন্মানিত পাঠকবৃন্দ আশা করি আপনারা সবাই আরটিকেল টি পুরোপুরি পড়ছেন। আমরা মালটিভিট প্লাজ ওষধ কি ও এর ব্যাবহার, উপাকার ইত্যাদি দিয়ে বিস্তারিত আলোচনা আছি৷ আশা করি এই আর্টিকেল টি পরে আপনারা উপকৃত হয়েছেন। আর্টিকেল টি পড়ে যদি আপনারা উপকৃত হন তাহলে আমাদের লেখা সার্ধক হবে। 

Leave a Comment